শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৯:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বসন্তেশ্বরী’র প্রিমিয়ার সো আগামি ১৯ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার, চট্টগ্রাম থিয়েটার ইনস্টিটিউট। প্রাবন্ধিক রূপম চক্রবর্ত্তী’র সমাজ রাজনীতি ও সংস্কৃতির খেরোখাতা ভারতে হাইকোর্টের এএসআই দ্বারা তাজমহলের ২২ টি বন্ধ ঘর খোলার অনুমতি ভারতে নাগরিকত্ব পেতে ব্যর্থ হয়ে পাকিস্তানে ফিরে গেছেন প্রায় ৮০০ হিন্দু শরণার্থী। নানান মাঙ্গলিক আয়োজনে অনুষ্ঠিত জাগো হিন্দু পরিষদ পটিয়া উপজেলার কর্মী সম্মেলন বাংলাদেশ মহিলা ঐক্য পরিষদ এর কিশোরগঞ্জ জেলা শাখার ত্রি বার্ষিক সম্মেলন ২০২২ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সঙ্গে মার্কিন বিশেষ দূতের সঙ্গে বৈঠক মায়ের আর্তনাদে মেয়েদের সম্মেলিত প্রচেষ্টা বাসন্তী পূজায় ও বসন্ত উৎসবে বাগীশ্বরী সংগীতালয় ভারতের উত্তরপ্রদেশ জেলবন্দিদের মানসিক শান্তির জন‍্য শোনানো হবে গায়ত্রী মন্ত্র ও মহা মৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র

দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় নানাভাবে নির্যাতনের শিকার-শ্যামল দত্ত

Spread the love

 

চট্টগ্রাম অফিস : স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে বলে উল্লেখ করে দৈনিক ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত বলেছেন, হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘরবাড়ি, মঠ-মন্দির ভাঙচুরের ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়ত। সনাতনী সম্প্রদায় ভোট দিলেও নির্যাতিত হয়, না দিলে নির্যাতিত হয়। সনাতন সম্প্রদায়ের মানুষকে এ দেশ থেকে বিতারিত করার ষড়যন্ত্র করে ধর্মান্ধ, উগ্র সাম্প্রদায়িক অপশক্তি। অথচ অসাম্প্রদায়িক, বৈষম্যহীন, ধর্মনিরপেক্ষ দেশ গড়তে এ দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে জীবন দিয়েছেন লাখ লাখ মানুষ। অসাম্প্রদায়িক, ধর্মনিরপেক্ষ দেশ গড়তে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সনাতন সংগঠন, চট্টগ্রাম মহানগরের উদ্যোগে সাংগঠনিক মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যায় নগরীর জেএম সেন হল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এই মিলনমেলায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তিনি। এ সময় এসব কথা বলেন শ্যামল দত্ত।

ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত। তিনি ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে নিজেদের অধিকার রক্ষায় সব ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে নিয়মতান্ত্রিক জোরদার আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান। একইসঙ্গে এ পর্যন্ত ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচার-নির্যাতনের সঙ্গে জড়িতদের বিচার দাবি করেন তিনি। সংগঠনের সভাপতি বিশ্বজিৎ সরকারের সভাপতিত্বে মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্বালনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন অশোক চক্রবর্তী লিংকন। বক্তব্য রাখেন প্রবর্তক সংঘের একটি সাধারণ সম্পাদক তিনকড়ি চক্রবর্তী, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি উত্তম কুমার শর্মা, চট্টগ্রাম জজ কোর্টের এপিপি প্রবীর কুমার ভট্টাচার্য, মহানগর যুবলীগ নেতা দেবাশীষ পাল দেবু, কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী, শৈবাল দাশ সুমন, মহিলা কাউন্সিলর নিলু নাগ, রুমকি সেনগুপ্ত, সনাতন সংগঠন ঢাকার উপদেষ্টা তপুব্রত ভট্টাচার্য,

সনাতন সংগঠনের বিভাগীয় সভাপতি ডা. সজীব তালুকদার ও সংগঠক কানন প্রতাপ দত্ত। সুপ্রিয়া চৌধুরী, শান্তনু মিত্র ও পল্লব গুপ্ত বিপুলের যৌথ সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন কো- অর্ডিনেটর ডা. সন্তোষ কুমার দে। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কাঞ্চন আচার্য, এডভোকেট রাজীব দাশ (বাবু) ও বাপ্পাদিত্য বসু। গীতা-চণ্ডী ও শিব স্তোত্র পাঠ করেন সংগঠনের সদস্যরা। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সমাজের স্বার্থ রক্ষা ও উন্নয়নে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলার প্রত্যয়ে ২০০৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় সনাতন সংগঠন-সনাতনী। এই সংগঠন সনাতনী সমাজের দাবি আদায়ে প্রত্যক্ষ আন্দোলন ও সচেতনতা আনতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে।

মিলনমেলায় সনাতন সংগঠন মহানগর কমিটির (২০২২-২৩) ৩৫ জন সদস্য ও সনাতন যুব ফোরামের ২৫ জন সদস্যের অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে সংগঠনের কার্যক্রম নিয়ে ভার্চুয়াল প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন রূপা সেন।

 

সূত্রঃ ভোরের কাগজ পত্রিকা



আমাদের ফেসবুক পেইজ