বৃহস্পতিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২০, ০৫:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বিশ্ব বিখ‍্যাত শিল্পপতি অম্বরিশ সুখশান্তির খোঁজে সনাতন ধর্মগ্রহন করে হয়ে উঠলেন কৃষ্ণ ভক্ত মন্দিরের পবিত্রতা রক্ষার্থে নতুন সিটি করপোরেশন প্রশাসকের নিকট মন্দির কমিটির খোলা চিঠি শ্রীশ্রী জন্মাষ্টমী পরিষদ বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে বিভিন্ন অনাথ আশ্রমে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ লাখাইয়ে স্বাস্থ্য বিধি মেনে দুই দিন ব্যাপী শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব উৎসব পলিত হচ্ছে বন্যার পরেও কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে দিগন্তজুড়ে সবুজের সমারোহ শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর মায়ের বাড়ি শ্রীশ্রী শচীঅঙ্গন ধামে ডাকাতি শ্রী কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সুজিত কুমার দাশ শুভ জন্মাষ্টমী শুভেচ্ছা জানিয়েছেন শিক্ষা উপ-মন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী জন্মাষ্টমী উপলক্ষে সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ যশোরের ভার্চুয়্যাল আয়োজন শুভ জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন শ্রীকৃষ্ণ দুষ্টকে দমন করে সৃষ্টকে পালন করেছিলো

নারায়ণগঞ্জ বিজয়নগর শ্মশানকালী বাড়ি চুরি ও প্রতিমা ভাংচুর সহ অগ্নিসংযোগ

প্রকাশ দে,নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে একটি কালী মন্দিরে অগ্নিসংযোগ ও প্রতিমা ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সকালে উপজেলার উচিৎপুরা ইউনিয়নের উচিৎপুরা বিজয়নগর এলাকায় শ্মশান কালী মন্দিরে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

শ্মশান কালী মন্দিরের পূজারী সাধনা রানী বর্মণ ও তত্ত্বাবধায়ক সুখেন্দ্র কর জানান, প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে মন্দিরে পূজা দিতে যান। মন্দিরের সামনে গিয়ে দেখতে পান মন্দিরের লোহার গেইট ও দুটি দরজা খোলা এবং কালী ও মহাদেব প্রতিমায় আগুন জ্বলছে। আগুন দেখে তারা ডাক চিৎকার শুরু করে এবং পার্শ্ববর্তী জলাশয় থেকে জল এনে প্রতিমার আগুন নেভাতে সক্ষম হন। মন্দিরে মহাদেব প্রতিমার বাম হাতটি ভেঙ্গে প্রতিমা থেকে বিচ্ছিন্ন করা অবস্থায় পাওয়া যায় এবং রূপার মুকুটসহ প্রায় আধা কেজি রূপার অলংকারসহ মন্দিরের মালামাল ছড়িয়ে ছিটিয়ে ফেলে রাখা হয়েছে।

মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক লোকনাথ বর্মন জানান, আগুন ও মূর্তি ভাঙ্গার খবর পেয়ে মন্দিরে গিয়ে এ ঘটনা দেখে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহাগ হোসেন ও আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলামকে জানাই। দুপুরে ওসি নজরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। খবর পেয়ে সকালে উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের আহবায়ক ও উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি হারাধন চন্দ্র দেসহ উপজেলার হিন্দু নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে যান। তারা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান এবং জড়িতদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানান। মন্দিরের প্রতিমায় অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুরের ঘটনায় স্থানীয় হিন্দু জনগোষ্ঠীর মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।

আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে মন্দিরে গিয়েছি। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সোহাগ হোসেন বিকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জানান, এ ঘটনার সাথে জড়িতদের খুজে বের করে শাস্তির আওতায় আনা হবে।



আমাদের ফেসবুক পেইজ