রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৯:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
একজন দুঃখীনি মায়ের গল্প কৃষ্ণকলি ইমু গ্রুফের শ্রীমদ্ভাগবদগীতা পাঠ ও ভজনগীতি প্রতিযোগীতা ২০২১ এর ফাইনাল রাউন্ড   অনুষ্ঠিত। এড.তপন কান্তি দাশের শুভ জন্মদিনে বিভিন্ন সংগঠনের শুভেচ্ছা বার্তা গীতাঞ্জলি মাতৃ সম্মিলনী এর মানবিক প্রয়াস কৃষ্ণকলি ইমু গ্রূপ’র শ্রীমদ্ভাগবত গীতা ও ভজনগীতির ফাইনাল রাউন্ড ৩০শে এপ্রিল সন্ধ্যা ৭টায় ধামরাইয়ে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ -২০২১ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও গর্ভবতী মায়েদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কিশোরগঞ্জ গুরু দয়াল সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যাপক প্রানেশ কুমার চৌধুরীর পরলোকগমন। সংখ্যালঘু শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির কোটা বণ্টনে শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) ধামরাইয়ে শ্রীশ্রী যশোমাধব মন্দির কমিটির সদস্য অমিয় গোপাল বনিকের পরলোকগমন বোয়ালখালীতে সংগীতশিল্পী ও গীতাপাঠক বিধান দাসের গীতা পাঠের মাধ্যমে সূর্য মোহন দাসের ক্রিয়া ও গীতাপাঠ অনুষ্ঠান সম্পন্ন

বিচার দেওয়ায় হিন্দু পরিবারের উপর সশস্ত্র হামলা

Spread the love
 
 
সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি: আমি তো কলেজে পড়ি, এরার ভয়ে বাড়ি থেকে বার হই না তেমন, বাড়িতে থাকিয়াও নিস্তার নাই। বর্ষা কালে নদীতে স্নান করতে গেলে। এরা নদীর অন্য পাড় থাকিয়া আসিয়া নৌকা লইয়া আইয়া কাছ থাকিয়া মোবাইল দিয়া ছবি তোলে, ভিডিও করে। এখন আমরা কেউ নদীতে যাই না। বাড়ির টিউবওয়েলে স্নান করি।
 

বাড়িতে আসিয়াও এরা ছবি তোলার চেষ্টা করে। গ্রামের ময়- মুরুব্বিদের বাবায়-কাকায় জানাইলে, তারা বিচার করছিলেন। এখন আরো বিপদ বাড়ি গেছে, বাড়িতে আসিয়া মারধর করে গেছে। কথাগুলো কেদে কেদে এভাবেই বলেছিলো সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার টাকাটুকিয়া গ্রামের কলেজ পড়ুয়া চামেলী বর্মন।

 
চামেলির ৬ষ্ট শ্রেণি স্কুল পড়ূয়া বোন পপিকেও তার মতন স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে উক্তত্য করেছে বখাটেরা। নালিশ করায় পপি ও চামেলীদের বাড়িতে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে গত ১৪/০৪/২০২১ তারিখ বুধবার হামলা চালিয়েছে টুকেরগাঁও গ্রামের একদল বখাটে। হামলায় বৃদ্ধ ও নারীসহ মোট আটজন আহত হয়েছেন। বুধবার দুপুরে দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের টাকাটুকিয়া গ্রামের দেবেন্দ্র বর্মণের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। রাতে ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে ২৫ জনকে আসামি করে দেবেন্দ্র বর্মণের ছেলে সত্যেন্দ্র বর্মণ তাহিরপুর থানায় বাদী হয়ে মামলা করেছেন।
 
পুলিশ বৃহস্পতিবার দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে বলে জানা যায়। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৌলাই নদীর পূর্ব পাড়ের গ্রাম টুকেরগাঁও। পশ্চিম পাড়ে টাকাটুকিয়া গ্রাম। টাকাটুকিয়া হিন্দু ও মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের বেশ পুরোনো একটি গ্রাম। মিলেমিশে বসবাস এই গ্রামের মানুষের বহুদিনের। এই গ্রামের কিছু বখাটে তরুণ বহুদিন ধরেই বর্মণ পাড়ার স্কুল পড়ূয়া ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে আসছে বলে তারা জানায়। টাকাটুকিয়া গ্রামের জামালগড়, রসুলপুর ও টুকেরগাঁও গ্রামের গণ্যমান্যদের উপস্থিতিতে সালিশ বৈঠক করে টুকেরগাঁওয়ের মোক্তার আলীর ছেলে বখাটে কাশেম মিয়া, শহীদ মিয়ার ছেলে লাইট মিয়া ওরফে রুহিত, বিল্লাল মিয়ার ছেলে মুসা মিয়া ও মুক্তার আলীর ছেলে পাবেল মিয়া, সিরাজ মিয়ার ছেলে মেজর আলীকে বখাটেপনার জন্য সামাজিক বিচারে শাস্তি দিয়েছিলেন। তাদের সালিশে কান ধরে উঠবস করানো হয়। ভবিষ্যতে এমন কাজ করবে না বলে সালিশে অঙ্গীকারও করেছিল বখাটেরা। এই বিচারের পর আরো ক্ষেপে যায় বখাটেরা। তারা নানাভাবে বর্মণ পরিবারের লোকজনের ক্ষতি করতে থাকে।
 
ছয় মাস আগে দেবেন্দ্র বর্মণের ছেলে বাছিন্দ্র বর্মণের ৫০ হাজার টাকা দামের জালে আগুন দেয়। এরপর খড়ের ঘর জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। বুধবার ৩০-৩৫ জনের সশস্ত্র দল বর্মণ বাড়িতে হামলা করে পুরুষ ও নারীদের মারধর এবং ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে। হামলায় আহত হয়েছেন দেবেন্দ্র বর্মণ (৭০), তার ছেলে বাছিন্দ্র বর্মণ (৫০), সত্যেন্দ্র বর্মণ (৪৫), সঞ্চিত বর্মণ (৩০) বাছিন্দ্র বর্মণের স্ত্রী বিউটি বর্মণ (৪৫), ছেলে বাবলু বর্মণ (১৭), শিপলু বর্মণ (১৫) ও তাদের আত্মীয় দেবল বর্মণ (২২)। আহতদের প্রথমে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছিল। বাছিন্দ্র, বিউটি ও বাবলু বর্মণের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। বাছিন্দ্র বর্মণের মেয়ে পপি বর্মণ বলেন, বুধবার ২৫-৩০ জন মিলে বাড়ি এসে আক্রমণ করে। আমি বাবার সঙ্গে ঘরের বেড়া দেওয়ার কাজ করছিলাম, আমাকে এসে লাথি দিয়ে মাটিতে ফেলে আমার বাবাকে মারধর করে। আমার বড় বোন ও ভাই বাবলু আরেক বাড়িতে (শ্যামল আচার্যের বাড়িতে) লুকিয়ে ছিল।

 

ওই ঘর থেকে বাবুলকে ধরে এনে নির্মমভাবে পিটিয়েছে বখাটেরা। আমার মা ফেরাতে গিয়েছিল, তার হাত ভেঙে দিয়েছে। গ্রামের বাসিন্দা স্কুল শিক্ষক নারায়ণ বর্মণ বলেন, বখাটেদের যন্ত্রণায় গ্রামের মেয়েরা বাড়ি থেকে বের হতেই ভয় পায়।

 
একবার গ্রামে সালিশ করে ওদের শাস্তি দেওয়া হয়। সেই থেকে আরও উৎপাত বাড়িয়েছে। অভিযুক্ত মুসার বাবা বিল্লাল মিয়া বলেন, ঘটনার সঙ্গে বড় কেউ যুক্ত নয়। ছোট বাচ্চাদের ঝামেলা এটি। আমরা কিছুই জানি না। তাহিরপুর থানার ওসি আব্দুল লতিফ তরফদার জানান, মামলার আসামি শহীদ মিয়া ও সিরাজ মিয়া নামের দু’জনকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার টাকাটুকিয়ার নির্যাতিত ক্ষতিগ্রস্ত বর্মণ পরিবারের সদস্যদের কাছে গিয়ে সান্ত্বনা ও দোষীদের আইনের আওতায় এনে বিচার নিশ্চিত করার আশ্বাস দেন উপজেলা চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদ্মাসন সিংহ, এএসপি বাবুল আখতার।
 
এ ছাড়া তাহিরপুরের সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান কামরুল, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক হাফিজ উদ্দিন, তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতা মিলন তালুকদার ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্যাতিতদের সান্ত্বনা দেন।
 



আমাদের ফেসবুক পেইজ