সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত কলেজে  শিক্ষক হত্যার ঘটনায় কেয়ারটেকার সহ ৪ জনকে আটক নড়াইলে অষ্টমী ও কুমারী পূজাঁ অনুষ্ঠিত বাগীশিক চট্রগ্রাম মহানগর সংসদ এর উদ্যােগে শারদীয় দূর্গা পূজা উপলক্ষ্য বস্ত্র বিতরণ, সেলাই মেশিন প্রদান ও নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ অনুষ্টিত নড়াইলের পল্লীতে হিন্দু কলেজ শিক্ষককে গলা কেটে হত্যা! প্রিয় চট্টলাবাসীকে শারদীয়া দুর্গা পূজার শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন শ্রী রাজীব তালুকদার বাংলাদেশ গীতা শিক্ষা কমিটি (বাগীশিক)-চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সংসদের উদ্যোগে অনাথদের নিয়ে শারদোৎসব পালিত বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট-চট্টগ্রাম মহানগরের আহবায়ক কমিটি অনুমোদিত বোয়ালমারীতে প্রতিমা ভাংচুর, গ্রেফতার নয়ন শেখ ও রাজু শেখ মৃণাল কান্তি বসু ও দিপক কান্তি বসুর পূর্বপুরুষরা জমিদার ছিলেন লাখাইয়ে পুজা উদযাপন পরিষদ কতৃক বস্তু বিতরণ

মাইনাস ৪৫ ডিগ্রিতেও খালি গায়ে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি ধ‍্যানমগ্ন সাধু ভিডিও করলেন ভারতীয় সেনা

হিমালয়ের হিমবাহে মাইনাস ৪৫ ডিগ্রি তাপমাত্রায় কেউ নগ্ন দেহে শুধু নেংটি পরে স্বাভাবিকভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছেন, তুষারের ওপর বসে ধ্যান করছেন – এমনটা কল্পনায় ভাবাও কঠিন।

কিন্তু এরকমই একটি দুর্লভ ঘটনার ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে সামাজিক মাধ্যমে। এক ভারতীয় সেনার ধারণ করা ওই ভিডিওতে এক হিন্দু সাধুকে দেখা গেছে বরফের ওপর দিয়ে ঘুরে বেড়াতে এবং ধ্যান করতে। আর তার সঙ্গী আছে একটি কুকুর।

ভিডিওটিতে দেখা যায়, চারিদিক বরফের পাহাড়। আর তার মাঝখান দিয়ে খালি গায়ে শুধুমাত্র একটি কৌপীন পরে হেঁটে আসছেন এক সাধু। আর তার পাশে রয়েছে একটি কুকুর। একটু পরে দেখা যায় একটি জায়গা খুঁজে নিয়ে বসে পড়েছেন তিনি। তারপরই হয়ে পড়েন ধ্যানমগ্ন। আর একটু দূরে বসে তাঁর দিকে তাকিয়ে রয়েছে কুকুরটি। একটু বাদে এক সেনা জওয়ানকে ভিডিওর মধ্যে দেখা যায়। কয়েকজন ব্যক্তিকে এভাবে গান বাজাতে ও ভিডিও করতে দেখে সম্ভবত বিরক্ত হন সেই সাধু। এরপর ধ্যান ভেঙে উঠে আসেন তিনি। তারপর ওই এলাকা ছেড়ে চলে যান। সঙ্গে চলে যায় তার রহস্যময় কুকুরটিও।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, হিমালয়ের একটি দুর্গম অঞ্চলে গাড়ি নিয়ে টহলদারি চালাচ্ছিলেন ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। চারিদিকে ধু ধু বরফের মধ্যে আচমকা ওই সাধুকে ঘুরতে দেখে ভিডিও করতে শুরু করেন এক জওয়ান। কিছুক্ষণ বাদে গাড়িটি সাধুর দিকে এগিয়ে নিয়ে গেল তাঁর ধ্যানভঙ্গ হয়।

সেনা জওয়ানদের চোখের সামনে দেখে বিরক্তি প্রকাশ করে ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে বলতে এলাকা ছাড়েন সর্বস্বত্যাগী সেই সন্ন্যাসী। তার পিছু পিছু চলে যায় কুকুরটিও।

ভিডিওটি দেখে কেউ কেউ প্রশ্ন উত্থাপন করলেও বেশিরভাগ নেটিজেনই হতবাক হয়ে পড়েছেন। কেউ কেউ আবার একে ভারতীয় সংস্কৃতি, ধ্যান, সংযমের ক্ষমতা ও যোগশক্তির প্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন।

ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা ও মুক্তমনা বিবেক রঞ্জন অগ্নিহোত্রী তার টুইটারে ওই সন্ন্যাসীর চলে যাওয়ার ভিডিওটি  শেয়ার করে লিখেছেন, ‘একবার আমার এক শিক্ষিকা বলেছিলেন, শিব একট কাল্পনিক চরিত্র। তার মতে, একজন মানুষের পক্ষে এভাবে শূন্য তাপমাত্রায় বসবাস করা সম্ভব নয়। তিনি যদি আজও বেঁচে থাকতেন, তাকে এই ভিডিও দেখাতে পারতাম। তাহলে তিনিও বিস্ময়ে বলে উঠতেন, ওম্ নমো শিবায়।’

এই ভিডিও প্রকাশ‍্যে আসার পরপরই ভাইরাল হয়েছে ইন্টারনেটে। ইতোমধ্যে কয়েক লাখ মানুষ ভিডিওটি দেখে ফেলেছেন। এরকম আরও দুয়েকটি দুর্লভ ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক মাধ্যমে। নেটিজেনরা অবাক হয়ে গেছেন ওই সাধুও কীর্তি দেখে। যে অমানুষিক ঠাণ্ডায় সেনারা পর্যন্ত কাঁপতে থাকে, সেখানে সম্পূর্ন খালি গায়ে শুধু কৌপীন পরে কীভাবে ধ‍্যান করছেন ওই সাধু! অনেকেই মন্তব‍্য করেছেন, এসবই ধ‍্যান ও আত্মনিয়ন্ত্রণের মহিমা।



আমাদের ফেসবুক পেইজ