মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ইকবাল পাগল, খাবারের লোভে সব করতে পারে: দাবি পরিবারের সংখ্যালঘু নির্যাতনের প্রতিবাদে প্রতীকী পথ নাটক পরিবেশন করেন নির্মাতা-শিল্পী-তারকারা মাসিক সনাতন বার্তা” পত্রিকার শারদীয় দুর্গা পূজা স্মারকের প্রকাশনা অনুষ্ঠিত চকরিয়ায় শারদীয় দুর্গোৎসব ঘিরে ৪৮টি মন্ডপে চলছে শেষ মুহূর্তে প্রস্তুতি স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার আয়োজনে পূজার উপহারসামগ্রী পেল আড়াইহাজার হিন্দু পরিবার প্রতিমা ভাঙচুরের অভিযোগে জয়পুরহাটে যুবক আটক আনোয়ারা পচ্ছিম রায়পুর লোকনাথ সেবাশ্রমে ত্রিকালদর্শী শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার ২৯১ তম আবির্ভাব দিবস সম্পন্ন আনোয়ারায় সৎসঙ্গের বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত বাঁশখালী ঋষিমঠের অনাথ শিশুদের পাশে প্রকৌশলী বিপ্লব দাশ বাপ্পী সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে বৃষ্টি উপেক্ষা করে ঐক্যবদ্ধ সনাতন সমাজের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ

মাইনাস ৪৫ ডিগ্রিতেও খালি গায়ে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি ধ‍্যানমগ্ন সাধু ভিডিও করলেন ভারতীয় সেনা

Spread the love

হিমালয়ের হিমবাহে মাইনাস ৪৫ ডিগ্রি তাপমাত্রায় কেউ নগ্ন দেহে শুধু নেংটি পরে স্বাভাবিকভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছেন, তুষারের ওপর বসে ধ্যান করছেন – এমনটা কল্পনায় ভাবাও কঠিন।

কিন্তু এরকমই একটি দুর্লভ ঘটনার ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে সামাজিক মাধ্যমে। এক ভারতীয় সেনার ধারণ করা ওই ভিডিওতে এক হিন্দু সাধুকে দেখা গেছে বরফের ওপর দিয়ে ঘুরে বেড়াতে এবং ধ্যান করতে। আর তার সঙ্গী আছে একটি কুকুর।

ভিডিওটিতে দেখা যায়, চারিদিক বরফের পাহাড়। আর তার মাঝখান দিয়ে খালি গায়ে শুধুমাত্র একটি কৌপীন পরে হেঁটে আসছেন এক সাধু। আর তার পাশে রয়েছে একটি কুকুর। একটু পরে দেখা যায় একটি জায়গা খুঁজে নিয়ে বসে পড়েছেন তিনি। তারপরই হয়ে পড়েন ধ্যানমগ্ন। আর একটু দূরে বসে তাঁর দিকে তাকিয়ে রয়েছে কুকুরটি। একটু বাদে এক সেনা জওয়ানকে ভিডিওর মধ্যে দেখা যায়। কয়েকজন ব্যক্তিকে এভাবে গান বাজাতে ও ভিডিও করতে দেখে সম্ভবত বিরক্ত হন সেই সাধু। এরপর ধ্যান ভেঙে উঠে আসেন তিনি। তারপর ওই এলাকা ছেড়ে চলে যান। সঙ্গে চলে যায় তার রহস্যময় কুকুরটিও।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, হিমালয়ের একটি দুর্গম অঞ্চলে গাড়ি নিয়ে টহলদারি চালাচ্ছিলেন ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। চারিদিকে ধু ধু বরফের মধ্যে আচমকা ওই সাধুকে ঘুরতে দেখে ভিডিও করতে শুরু করেন এক জওয়ান। কিছুক্ষণ বাদে গাড়িটি সাধুর দিকে এগিয়ে নিয়ে গেল তাঁর ধ্যানভঙ্গ হয়।

সেনা জওয়ানদের চোখের সামনে দেখে বিরক্তি প্রকাশ করে ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে বলতে এলাকা ছাড়েন সর্বস্বত্যাগী সেই সন্ন্যাসী। তার পিছু পিছু চলে যায় কুকুরটিও।

ভিডিওটি দেখে কেউ কেউ প্রশ্ন উত্থাপন করলেও বেশিরভাগ নেটিজেনই হতবাক হয়ে পড়েছেন। কেউ কেউ আবার একে ভারতীয় সংস্কৃতি, ধ্যান, সংযমের ক্ষমতা ও যোগশক্তির প্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন।

ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা ও মুক্তমনা বিবেক রঞ্জন অগ্নিহোত্রী তার টুইটারে ওই সন্ন্যাসীর চলে যাওয়ার ভিডিওটি  শেয়ার করে লিখেছেন, ‘একবার আমার এক শিক্ষিকা বলেছিলেন, শিব একট কাল্পনিক চরিত্র। তার মতে, একজন মানুষের পক্ষে এভাবে শূন্য তাপমাত্রায় বসবাস করা সম্ভব নয়। তিনি যদি আজও বেঁচে থাকতেন, তাকে এই ভিডিও দেখাতে পারতাম। তাহলে তিনিও বিস্ময়ে বলে উঠতেন, ওম্ নমো শিবায়।’

এই ভিডিও প্রকাশ‍্যে আসার পরপরই ভাইরাল হয়েছে ইন্টারনেটে। ইতোমধ্যে কয়েক লাখ মানুষ ভিডিওটি দেখে ফেলেছেন। এরকম আরও দুয়েকটি দুর্লভ ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক মাধ্যমে। নেটিজেনরা অবাক হয়ে গেছেন ওই সাধুও কীর্তি দেখে। যে অমানুষিক ঠাণ্ডায় সেনারা পর্যন্ত কাঁপতে থাকে, সেখানে সম্পূর্ন খালি গায়ে শুধু কৌপীন পরে কীভাবে ধ‍্যান করছেন ওই সাধু! অনেকেই মন্তব‍্য করেছেন, এসবই ধ‍্যান ও আত্মনিয়ন্ত্রণের মহিমা।



আমাদের ফেসবুক পেইজ